Monday, July 24, 2017

সেই ইউএনওর মামলার নথি তলব





ঢাকা: বঙ্গবন্ধুর ছবি বিকৃতির অভিযোগে বরগুনার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা গাজী তারিক সালমনের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলার নথি তলব করেছেন প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা।

প্রধান বিচারপতির এ আদেশের সঙ্গে সঙ্গে বরিশালের চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ আলী হোসেন রবিবার (২৩ জুলাই) ইন্টারনেটে সংশ্লিষ্ট নথি পাঠিয়েও দিয়েছেন। তবে সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল বরাবর পাঠানো নথির সঙ্গে একটি ব্যাখ্যাও দিয়েছেন তিনি।

ব্যাখ্যায় বলেছেন, ‘আদালতের কার্যপ্রণালী শেষে এজলাস ত্যাগ করে খাসকামরায় এসে শুনি ইউএনও সাহেবের জামিন নামঞ্জুর করে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে মর্মে অনলাইন মিডিয়ায় সংবাদ প্রচার করা হচ্ছে। প্রকৃতপক্ষে ইউএনও সাহেবের জামিনের আবেদন একটিবারের জন্যও নামঞ্জুর করা হয়নি। ফলে জেলহাজতে প্রেরণের কোনো প্রশ্নই ওঠে না।

নথি চাওয়া ও প্রাপ্তি প্রসঙ্গে সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগের অতিরিক্ত রেজিস্ট্রার (প্রশাসন ও বিচার) সাব্বির ফয়েজ বলেন, মিডিয়ায় ওই মামলা নিয়ে ব্যাপক আলোচনা হচ্ছে। তাই প্রধান বিচারপতি বিষয়টি জানার জন্য নথি চেয়েছেন। সংশ্লিষ্ট বিচারক ইন্টারনেটে নথি পাঠিয়েছেন। কাল (সোমবার) সরাসরি আসবে। এছাড়া চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ আলী হোসেন এ বিষয়ে একটি ব্যাখ্যাও দিয়েছেন। পুরো বিষয়টি দেখছেন রেজিস্ট্রার জেনারেল সৈয়দ আমিনুল ইসলাম।

গত ১৭ মার্চ বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন উপলক্ষে আয়োজিত চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতায় প্রথম ও দ্বিতীয় স্থান অর্জনকারীদের আঁকা চিত্রকর্ম ব্যবহার করে স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠানের আমন্ত্রণপত্র তৈরি করেন আগৈলঝড়ার ইউএনও গাজী তারিক সালমন। এ নিয়ে বরিশাল আইনজীবী সমিতির সভাপতি ও জেলা আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক ওবায়দুল্লাহ সাজু কার্ডে বঙ্গবন্ধুর ছবি ‘বিকৃত’ করে উপস্থাপন করা হয়েছে অভিযোগ তুলে ৭ জুন মানহানির মামলা করেন।

পরবর্তীতে ১৭ জুলাইয়ের মধ্যে তারিক সালমনকে আদালতে হাজির হওয়ার নির্দেশ দিয়ে সমন জারি করা হয়। সে অনুযায়ী, গত ১৯ জুলাই বুধবার ওই মামলায় আদালতে হাজিরা দিয়ে জামিনের আবেদন করলে প্রথমে জামিন নামঞ্জুর হয়। কিছুক্ষণ পরে তার জামিন মঞ্জুর হয়।

No comments:

Post a Comment