Saturday, July 29, 2017

Aaj Phir Tumpe Pyaar Aaya Hai HD Full MP4 Hate Story 2

O re nil doriya amai dere de charia Bangla Movie Songs 04 YouTube 360p

DJ Khaled - Wild Thoughts ft. Rihanna, Bryson Tiller



DJ Khaled - Wild Thoughts ft. Rihanna, Bryson Tiller

https://www.youtube.com/watch?v=fyaI4-5849w
Please see the vdo on YouTube.
https://www.youtube.com/watch?v=fyaI4-5849w

বিয়ে করার পূর্বে এই কাহিনীটা ভাল করে মনে রাখবেন…


বিয়ে করার পূর্বে
এই কাহিনীটা ভাল করে মনে রাখবেন…
:



এক যুবক তার যৌবন কে সারাটা
জীবন খারাপ কাজে ব্যয় করেছে।
এবার তার বিয়ের সময় হয়েছে কিন্তু তার মনে একটাই চিন্তা
আমি খারাপ হলেও ভাল একটা
মেয়ে বিয়ে করব তা যেভাবেই হোক
না কেন।
:
এমন চিন্তা করে সে এক জায়গায় পাএী দেখতে গেল।সে দেখল মেয়ে
খুব সুন্দরী। বিয়ে করতে ইচ্ছে
হল। বিয়ের তারিখ ও ঠিক হয়ে গেল।
:
কিন্তু ছেলের মনে একটাই চিন্তা
মেয়ে ভাল হওয়া লাগবে।তাই এবার সে মেয়ের কাছাকাছি গিয়ে বলল আমি ত
তোমাকে বিয়ে করবই।তার আগে আস
আমরা নতুন পার্কে গিয়ে ঘুরে আসি।
মেয়ে রাজী হল না। অনেক চেষ্টা
করে রাজী করাল।
: তারা নতুন নতুন জায়গা দেখল।
যুবকটি এবার মেয়েটিকে গোপন
জায়গায় নিয়ে খারাপ কাজের
প্রস্তাব দিল। মেয়েটি চিন্তা
করল। সে তো আমাকেই বিয়ে করবে।
তাই সে সব দিয়ে দিল।যুবক কাজ শেষে চিন্তা করল যেই মেয়ে বিয়ের
আগেই আমাকে সব দিয়ে দিল'সেই
মেয়ে না জানি আরো কতজনকে দিয়ে
হয়েছে।তাই সে চিন্তা করল এই
মেয়ে বিয়ে করবে না।
: সে চলে গেল আরেক জায়গায়
পাএী দেখতে। সেখানেও এরকম
ঘটনা ঘটল। এভাবে সে ছয়টা
মেয়ের ইজ্জত নষ্ট করেছে।
:
সে এবার নিরাশ হয়ে তার পিরের কাছে সব ঘটনা খুলে বলল। পীর
তাকে একটা তাবীজ দিয়া দিলেন।
এবার সে এক জায়গায় গেল
পাএী দেখতে।
:
মেয়ে খুব সুন্দরী তাই তার বাবা বিয়ের দিন ঠিক করল। কিন্তু
ছেলের চিন্তা হল মেয়ে খাটি
হতে হবে। তাই পরীক্ষা করার
জন্য পুর্বের মত তাকে ও পার্কে
জাওয়ার জন্য প্রস্তাব দিল।
: মেয়েটি এই প্রস্তাব শুনে আগুনের
মত ক্ষেপে গিয়ে বলল'খবরদার
আমরা ধার্মিক পরিবারের মেয়ে।
বিয়ের আগে এ কাজ করব না।
চলে যাও এখান থেকে। যুবকটি
চিন্তা করল এই মেয়ে না জানি আরো কত যুবককে তারিয়ে দিয়েছে।
:
অনেক চেষ্টা করে তাকে বিয়ে করে
বাসর রাতে খুব কাছাকাছি গিয়ে
জিগ্গেস করল; আচ্ছা বউ বিয়ের
আগে পার্কে গিয়ে তোমাকে ভোগ করতে চেয়েছিলাম তখন তুমি দাওনি এখন
তো তুমি সবই দিয়ে দিচ্ছ।ধমক
দিয়ে লাভটা হইলো কি?
:
বউ এবার নরম সুরে স্বামীর
মাথায় হাত রেখে বলছে স্বামীগো আল্লার কসম তোমার আগে আরো
ছয়জন পুরুষ আইসা আমারে বিয়ার
কথা বলে ছয়বার নষ্ট করছে।
:
এরপর চিন্তা করলাম বিয়ের আগে
আর কাউকে দিবনা। তাই তোমাকেও দেইনি। স্বামী কপালে হাত দিয়া
বলল তাবিজ দিয়া লাভটা হইল কি?
যেমন কর্ম তেমন ফল।
:
তাই আসুন নিজেকে পবিএ করি।
নতুবা এরকমই হবে। আল্লাহ তায়ালা ভাল পুরুষকে ভাল মেয়ের
সাথে মিলিয়ে দিবেন।
এটাই আল্লাহর ওয়াদা।

মেজর জিয়াউদ্দিনের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক

মেজর জিয়াউদ্দিনের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক

 

 মহান মুক্তিযুদ্ধের সাব সেক্টর কমান্ডার মেজর (অব.) জিয়াউদ্দিনের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শুক্রবার এক শোকবার্তায় শেখ হাসিনা মহান মুক্তিযুদ্ধে তার বীরত্বপূর্ণ অবদানের কথা শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করেন। তিনি মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন এবং তার শোক-সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি আন্তরিক সমবেদনা জানান।

মুক্তিযুদ্ধের ৯ নম্বর সেক্টরের সুন্দরবনের সাব সেক্টর কমান্ডার মেজর জিয়াউদ্দিন আহমেদ শুক্রবার ভোরে সিঙ্গাপুরের ন্যাশনাল মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে মারা যান। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৬৭ বছর। তিনি গত ১ জুলাই অসুস্থ হওয়ার পর রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন। সেখানে অবস্থার অবনতি হওয়ায় পরদিন তাকে আইসিইউতে স্থানান্তর করা হয়। সেখান থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুরে নেওয়া হয়েছিল।
বাংলাদেশ সময়: ১৬২৫ ঘণ্টা, ২৮ জুলাই ২০১৭

বিনামূল্যে সময়, অর্থ ব্যবহার সুখ বৃদ্ধি করা হয়,


বিনামূল্যে আপ সময় অর্থ ব্যবহার বৃদ্ধি সুখ সঙ্গে লিঙ্ক করা হয়, একটি গবেষণা বলছে।


বস্তুগত বস্তুর উপর অর্থ ব্যয় করার পরিবর্তে - একটি পরীক্ষায়, ব্যক্তিরা অধিকতর সুখী রিপোর্ট করেছে যদি তারা £ 30 ($ 40) ব্যবহার করে সময় বাঁচাতে - যেমন করে কাজ করার জন্য অর্থ প্রদান করা হয় -
মনস্তাত্ত্বিকরা বলছেন যে সময়ের অভাবের কারণে চাপ কম হয়ে ওঠে এবং উদ্বেগ ও অনিদ্রায় অবদান রাখে।
তবুও, তারা বলে যে খুব ধনী তারা প্রায়ই যে চাকরি তারা অপছন্দ কাজ করতে টাকা দিতে অনিচ্ছুক হয়।
কানাডার ব্রিটিশ কলাম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের মনোবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড। এলিজাবেথ ডন বলেন, "সার্ভেগুলোর একটি সিরিজে আমরা দেখেছি যে যারা নিজেদেরকে আরও বেশি মুক্ত সময় ব্যয় করার জন্য অর্থ ব্যয় করে, তারা সুখী হয় - তাদের উচ্চতর সন্তুষ্টি রয়েছে"।জীবনের পরিতৃপ্তি
অনেক দেশে রাইজিং আয়ের একটি নতুন প্রপঞ্চ সৃষ্টি হয়েছে। জার্মানি থেকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে, লোকেরা "সময় দুর্ভিক্ষের" প্রতিবেদন করে, যেখানে তারা তাদের সময়ের দৈনন্দিন চাহিদাগুলির উপর জোর দেয়।
আমেরিকা, কানাডা এবং নেদারল্যান্ডের মনোবৈজ্ঞানিকরা পরীক্ষা করে দেখান যে টাকা সময় মুক্ত করে সুখের মাত্রা বাড়িয়ে তুলতে পারে কিনা।
আমেরিকা, কানাডা, ডেনমার্ক এবং নেদারল্যান্ডসের 800 মিলিয়নেয়ার সহ 6,000-এরও বেশি প্রাপ্তবয়স্ক ব্যক্তিদের জিজ্ঞাসা করা হয়েছিল তারা সময় ক্রয়ের জন্য কত টাকা ব্যয় করেছে।
গবেষকরা দেখিয়েছেন যে, প্রতি মাসে তিন থেকে তিন ভাগেরও কম লোক নিজেরাই সময় কাটায়।
যারা অন্যদের চেয়ে আরও বেশি জীবন সন্তুষ্টি রিপোর্ট করেছে
গবেষকরা তখন ভ্যানকুভার, কানাডার 60 জন সক্রিয় প্রাপ্তবয়স্কদের মধ্যে একটি দুই সপ্তাহের পরীক্ষা তৈরি করেন।
এক সপ্তাহের মধ্যে, অংশগ্রহণকারীকে একটি ক্রয়ের জন্য 30 পাউন্ড ($ 40) খরচ করতে বলা হতো, যা তাদের সময় বাঁচাতে পারে। তারা কাজ করতে বিতরণ করা lunches ক্রয় মত জিনিষ, প্রতিবেশী শিশুদের তাদের জন্য errands চালানোর জন্য পরিশোধ, বা পরিস্কার সেবা জন্য পরিশোধ।
অন্য সপ্তাহান্তে, তাদেরকে বস্তুগত বস্তুগুলির উপর প্রভাব বিস্তারের কথা বলা হয়েছিল। উপাদান ক্রয় ওয়াইন, বস্ত্র এবং বই অন্তর্ভুক্ত
পত্রিকায় প্রকাশিত গবেষণা, ন্যাশনাল একাডেমী অফ সায়েন্সেসের প্রসিডিংসস, বস্তুগত ক্রয়ের তুলনায় সময় বাঁচানোর সময় পাওয়া যায়, সময়গত চাপের অনুভূতি হ্রাসের দ্বারা সুখ বৃদ্ধি পায়।'দ্বিতীয় শিফট'
প্রফেসর ডন, যিনি হার্ভার্ড বিজনেস স্কুল, মাষ্টার্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকর্মীদের সাথে কাজ করেছেন এবং ভেরিয়া ইউনিভার্সিটি আমস্টারডামে বলেন, "অর্থ আসলেই সময় কিনে নিতে পারে।
"এবং তাই আমার গৃহীত বার্তাটি হল, 'এটি সম্পর্কে চিন্তা করুন, এমন কিছু আছে যা আপনি ঘৃণা সঙ্গে যে আপনি ভর্তি এবং আপনি অন্য কাউকে আপনার জন্য এটি করতে দিতে পারে? যদি তাই হয়, তাহলে বিজ্ঞান বলে যে এটি অর্থের একটি ভাল ব্যবহার। ''
মনস্তাত্ত্বিকেরা বলছেন যে এই গবেষণায় তাদের সাহায্য করতে পারে যারা কর্মক্ষেত্র থেকে বাড়িতে আসার সময় বাড়ির কাজকর্মের "দ্বিতীয় স্থানান্তর" করতে বাধ্য হয়।
"আমি মনে করি আমাদের কাজ সম্ভবত দ্বিতীয় শিফট থেকে একটি অব্যাহতির রুট প্রদান করে," অধ্যাপক ডন যোগ করেছেন।
অতীতের গবেষণায় দেখা গেছে যে, যারা টাকা দিয়ে সময়কে অগ্রাধিকার দেয় তাদের তুলনায় যারা বেশি

সময় ব্যয় করে তাদের চেয়ে বেশি সুখী হয়।

কেন আপনার চর্বি আপনার দোষ হতে পারে না


কেন আপনার চর্বি  আপনার দোষ হতে পারে না

 


 
লিপোয়েডের জিনগত কারণেই গবেষণা করা হচ্ছে - এমন একটি শর্ত যা মহিলাদের অস্বাভাবিকভাবে ফ্যাট বা 'ট্রি ট্রাঙ্ক' আকৃতির পায়ের জন্ম দেয়।
লন্ডনের ইউনিভার্সিটি অব লন্ডনের সেন্ট জর্জ হাসপাতালের সেন্ট জর্জ হাসপাতালের বিশেষজ্ঞরা আশা করেন যে গবেষণাটি এই রোগের কারণ খুঁজে বের করতে সাহায্য করবে যা প্রায় 9% মহিলা প্রভাবিত করে।
লিপোয়েডেম চর্বি স্বাভাবিক চর্বি থেকে ভিন্ন যে এটি খাদ্য এবং ব্যায়ামের প্রতি সাড়া দেয় না এবং ব্যথা ও ফুসকুড়ি সৃষ্টি করে। এটি সময়ের সাথে খারাপ হয়ে ওঠে এবং গতিশীলতা সমস্যাগুলি হতে পারে এবং আরেকটি অবস্থা যা লিমফাদারকে বলা হয়। এটি প্রায়ই হরমোনের পরিবর্তনের সময় শুরু হয় যেমন বয়ঃসন্ধিকালে, গর্ভাবস্থা বা মেনোপজ।
হোলি 32 এবং হুল থেকে তিনি 16 বছর বয়সে প্রথমবারের মতো বড় পায়ে আক্রান্ত হন এবং তিন বছর আগে লিপোয়েডের সাথে ডায়ালাইসিস করেন। তিনি অস্বাভাবিক চর্বি অপসারণ একটি liposuction বিশেষ ধরনের ছিল এবং অপারেশন "জীবন পরিবর্তন" হবে বলে।
লিপোয়েডের এনএইচএস পাতা বলে: "লিপোয়েডেমের জন্য লিপোসুলেশন করার এনএইচএস অর্থায়ন করা কঠিন, তবে আপনার জিপি আপনার স্থানীয় সিসিজি মাধ্যমে অর্থায়নের জন্য আবেদন করার চেষ্টা করতে পারে।"
অস্ত্রোপচারের পর হোলি বলেন: "মানুষ যখন আপনাকে আশ্চর্যজনক বলে মনে করে - আমি বলি - কিন্তু আমি এটা দেখতে চাই না যে আমি দেখতে চেয়েছিলাম - আমি ব্যথা দূর করতে এই কাজ করেছি"।

নওয়াজ শরীফ পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে পদত্যাগ করেছেন

নওয়াজ শরীফ পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে পদত্যাগ করেছেন(bbc.com)

নওয়াজ শরীফ পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে পদত্যাগ করেছেন দেশটির সুপ্রিম কোর্টের এক আদেশে তাকে পদ থেকে অযোগ্য ঘোষণা করার জন্য।
২015 সালের পানামা কাগজপত্রের পর তার পরিবারের সম্পদ অনুসন্ধানের পর ক্ষমতাসীনরা শরীফের ছেলেমেয়েদের অফশোর কোম্পানির কাছে সংযুক্ত করে ডাম্প করে।
শরীফের মামলায় কোনও বেআইনীভাবে দোষারোপ করা হয়নি।
পাঁচ বিচারক ইসলামাবাদ কোর্টে সর্বসম্মত রায়তে পৌঁছেছেন, যা ক্ষমতায় পূর্ণ ছিল।
শরীফের কার্যালয়ের মুখপাত্র এক বিবৃতিতে বলেন, রায়ের পর নওয়াজ শরিফ প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। যাইহোক, তিনি বলেন যে বিচার বিভাগীয় প্রক্রিয়া সম্পর্কে "গুরুতর আপত্তি" ছিল।
রাজধানীতে উন্নত নিরাপত্তা ছিল, দশ হাজার সৈন্য ও পুলিশ মোতায়েন ছিল।
২011 সালের সাধারণ নির্বাচনের সময় তার মনোনয়ন পত্রিকায় দুবাই ভিত্তিক কোম্পানীর কাছ থেকে তার আয় প্রকাশ না করে শরীফের অনাস্থা ছিল আদালত।
এক বিচারপতি ইজাজ আফজাল খান বলেন, শরীফ এখন আর সংসদের একজন সৎ সদস্য হওয়ার যোগ্য নয়।
পাকিস্তানের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী চৌধুরী নিসার আলী খান আগেই বলেছিলেন, শরীফকে শুক্রবার রায় মেনে নিতে হবে।
আদালত শরীফ, তাঁর কন্যা মরিয়ম এবং তার স্বামী সাফদার, অর্থমন্ত্রী ইসহাক দার এবং অন্যান্যদের মধ্যে অনেকেই দুর্নীতির মামলা দায়ের করেছেন।

Add & find your city tourist place

Add & find your city tourist place
see the link: http://digitalsolution.epizy.com/wordpress/gd-home/



Friday, July 28, 2017

Dhaka to Kualampur round trip Air Ticket 24,000 BDT only.

Dhaka to Kualalampur round trip Air Ticket 24,000 BDT only. Flight will be after 25/08/17. Book now. Pl contact 01711977124



Google pledges $50 million to help people land jobs

We're funding nonprofits using technology to train workers in new skills, connect job seekers with open positions and provide support for low-wage service workers. And those nonprofits will also get volunteer help from Googlers:  https://goo.gl/27rFXR











Google pledges $50 million to help people land jobs



n.com/feed/update/urn:li:activity:6296081444854988800https://www.linkedin.com/feed/update/urn:li:activity:6296081444854988800

Dhaka to Bangkok round trip Air Ticket 20000 only

Dhaka to Bangkok round trip Air Ticket 20000 only for short time. Flight date will be after one month. Book now pl call.01711977124 You can also get all Air ticket on Ruposhi Bangla Tours.

Husband Leaves Shocking Letter For His Wife. Then She Responds

Husband Leaves Shocking Letter For His Wife. Then She Responds




বাইপাস-চিংড়িঘাটা মোড়ে রাতের কলকাতায় মত্ত মহিলার তাণ্ডব, ট্রাফিক পুলিশকে ধরে চুম্বন মহিলার,

 বাইপাস-চিংড়িঘাটা মোড়ে রাতের কলকাতায় মত্ত মহিলার তাণ্ডব, ট্রাফিক পুলিশকে ধরে চুম্বন মহিলার, বেপরোয়া গতি দেখে পুলিশ গাড়ি আটকালে মত্ত মহিলার তাণ্ডব, দেখুন ভিডিও...

https://www.facebook.com/etvnewsbangla/videos/1078589038940127/

Why does the US military buy so much Viagra?

Why does the US military buy so much Viagra?

bbc.com

 

 

First, it is worth pointing out that the Military Times' February 2015 report based its figure on 2014 data from the Defense Health Agency.
The spend of $84.2m was for that year, but the newspaper also reported that $294m had been spent on Viagra, Cialis and other such medications since 2011.
It pointed out that this cost the equivalent of more than a few fighter jets.
In 2014, some 1.18 million prescriptions were filled, mostly for Viagra. But who were they for? The answer goes some way in explaining the massive spend.




It is true that some of the erectile dysfunction medication went to active-duty personnel.
But the vast majority went to other groups eligible, including millions of military retirees and their family members. In fact, around 10 million people in total are estimated to be covered by the Pentagon's healthcare system, which cost $52bn in 2012.
It is well known that erectile dysfunction is more common among older men - which would explain a hefty bill for retired service members.
In fact, less than 10% of the prescriptions were for active duty personnel, according to the Military Times.
Still, erectile dysfunction among those currently serving in the US mili
tary has been increasing since the wars in Iraq and Afghanistan began.

'Psychological causes'

A 2014 study by the Armed Forces Health Surveillance Branch (AFHSB) found that 100,248 cases of erectile dysfunction were diagnosed among active service members between 2004 and 2013, with "annual incidence rates" more than doubling in that time period.
Nearly half of all the cases were due to psychological causes, according to the study.

 

Diesel and petrol vehicles to be banned from 2040 in UK

Diesel and petrol vehicles to be banned from 2040 in UK

 

New diesel and petrol cars and vans will be banned in the UK from 2040 in a bid to tackle air pollution, the government has announced.
Ministers have also unveiled a £255m fund to help councils tackle emissions, including the potential for charging zones for the dirtiest vehicles.
But the £3bn clean air strategy does not include a scrappage scheme, calling previous ones "poor value" for money.
Local government leaders welcomed the funding but called for more detail.
Local authorities will be given direct financial support from the government, with £40m of the fund being made immediately.
They can use the funds for a range of measures, such as changing road layouts, implementing new technologies or encouraging residents on to public transport.
If those measures do not cut emissions enough, charging zones could be the next step - but the government says these should only be used for "limited periods".

 

Tuesday, July 25, 2017

খিচুড়ি নাকি ইলিশ পোলাও

খিচুড়ি নাকি ইলিশ পোলাও

আতাউর রহমান




রিমঝিম বৃষ্টিতে মনটা উতলা থাকে। ঘুম ঘুম ভাব কাজ করে। গতানুগতিক খাবারের প্রতি এক ধরনের অনীহা কাজ করে। এমন দিনে কারো পছন্দ ভুনা খিচুরি। কারো পছন্দ ইলিশ পোলাও।
পুষ্টিবিদরা বলেন, দুটোই মুখরোচক খাবার। রয়েছে পুষ্টিগুণও। এই দুটো তৈরির পদ্ধতি ও কোনটায় কী কী খাদ্যগুণ রয়েছে, তা নিয়ে এই ফিচার।
ক.ভুনা খিচুড়ি
অবিরাম ঝরে চলেছে বৃষ্টি। এমন বৃষ্টিমুখর দিনে গরম গরম ভুনা খিচুড়ি না হলে কি চলে? আলুভাজা, ইলিশ মাছ ভাজা, পেঁয়াজ কুচি অথবা ঝাল গরুর মাংস দিয়ে পরিবেশন করুন মজাদার ভুনা খিচুড়ি।
উপকরণ : মুগ ডাল- ১ কাপ, বাসমতি চাল- ২ কাপ, ঘি অথবা মাখন- আধা কাপ,  পেঁয়াজ কুচি আধা কাপ, কাঁচামরিচ ২টি, রসুন বাটা ২ চা চামচ, আদা বাটা ১ চা চামচ,পচ হলুদ গুঁড়া- ১ চা চামচ, ভাজা জিরা গুঁড়া- ১ চা চামচ, তেজপাতা ১টি, লবঙ্গ- ২/৩টি, দারুচিনি ২/৩টি, গরম পানি ৫ কাপ, লবণ- স্বাদ মতো।

প্রস্তুত প্রণালি : চাল ও ডাল ধুয়ে পানি ঝরিয়ে নিন। চুলায় মাঝারি আঁচে পাত্র বসিয়ে ঘি/মাখন দিয়ে পেঁয়াজ ভাজুন। একে একে সব মসলা, চাল ও ডাল দিয়ে নিন। ২ মিনিট ভেজে গরম পানি দিয়ে ঢেকে দিন পাত্র। চাল-ডাল সেদ্ধ না হওয়া পর্যন্ত রান্না করুন। নামিয়ে গরম গরম পরিবেশন করুন ভুনা খিচুড়ি। সঙ্গে দিতে পারেন গরুর কিংবা মুরগীর মাংস।
ইলিশ মাছের খিচুড়ি
উপকরণ : ইলিশ মাছ ১টি, রসুন বাটা ১ চা. চামচ, পোলাও চাল ২ কাপ, পেঁয়াজ কুচি ২ চা. চামচ, মসুর ডাল ১/২ কাপ, আদা বাটা ১/২ চা. চামচ, পেঁয়াজ বাটা ২ টে. চামচ, ধনে ১ চা. চামচ, হলুদ ১ চা. চামচ, নারকেলের দুধ ১/২ কাপ, মরিচ ১ চা. চামচ, কাঁচামরিচ ৫/৬টি, এলাচ ২টি, তেল ১/২ কাপ, দারুচিনি ২ টুকরো, লবণ পরিমাণমত।
প্রণালী : মাছ বড় টুকরো করে কাটতে হবে। মাছে সামান্য লবণ ও হলুদ দিয়ে মেখে রাখতে হবে। হাঁড়িতে তেল গরম করে পেঁয়াজ কুচি দিয়ে ভেজে লাল হলে সব মসলা দিয়ে কষাতে হবে। কিছুক্ষণ পর মাছ দিয়ে কষাতে হবে। মাছ কষানো হলে সাবধানে তুলে রাখতে হবে। ওই মসলাতে এবার চাল ও ডাল দিয়ে কষিয়ে মাপমত গরম পানি দিয়ে ঢেকে দিতে হবে। খিচুড়ির পানি কমে এলে তুলে রাখা মাছগুলো বিছিয়ে নারকেলের দুধ দিয়ে কম আঁচে ১৫ মি. দমে রেখে নামাতে হবে।

খাদ্যগুণ
১. খিচুড়িতে ক্যালরির পরিমাণ বেশি, কারণ খিচুড়িতে ডাল থাকে।
২. খিচুড়িতে সবজি দেয়া হয়। সে কারণে সবজি কম খাওয়া হলেও খিচুড়িতে থাকার কারণে সেটা খাওয়া হয়। বিশেষ করে যে শিশুরা সবজি খেতে চায় না, তাদের সবজি খিচুড়ি খাওয়ানো যেতে পারে।
৩. খিচুড়িতে চালের ও ডালের অ্যামিনো অ্যাসিড থাকে বলে যাদের ওজন বেশি, তাদের খাওয়া উচিত নয়।
৪. খিচুরিতে ক্যালরি বেশি থাকায় বৃষ্টির দিনে গায়ে তাপ বাড়ায়, এতে প্রশান্তি কাজ করে।
খ. ইলিশ পোলাও
ভারী বর্ষনের দিনে ইলিশ পোলাওয়ের নাম শুনলেই জিবে জল এসে যায়। বৃষ্টির দিনে এ খাবারের লোভ সামলানো দায়।
ইলিশের ব্যঞ্জন তৈরি
ইলিশ মাছ বড় ৮ টুকরা। টকদই ২ টেবিল-চামচ। পেঁয়াজ বেরেস্তা আধা কাপ। পেঁয়াজবাটা ১/৪ কাপ। আদা ও রসুন বাটা ১ টেবিল-চামচ করে। লবণ স্বাদ মতো। পাপরিকা বা লালমরিচ-গুঁড়া ১ চা-চামচ। সরিষার তেল ১/৪ কাপ। ঘি ২ টেবিল-চামচ। কাজুবাদাম-বাটা ১ টেবিল-চামচ। নারিকেলের দুধ ১ কাপ কাঁচামরিচ ১০টি। চিনি ১ চা-চামচ। একটি কড়াইতে তেল ও ২ টেবিল-চামচ ঘি গরম করে তাতে পেঁয়াজ, আদা ও রসুন বাটা, লালমরিচ-গুঁড়া, চিনি ও লবণ ১/৪ কাপ পানি দিয়ে কষাতে হবে। মাছের ট‚করাগুলো মসলায় ছেড়ে নারিকেলের দুধ মিশিয়ে ঢেকে অল্প আঁচে রান্না করতে হবে ১৫ মিনিট। তারপর বাদামবাটা, টকদই, পেঁয়াজ-বেরেস্তা, কাঁচামরিচ মিশিয়ে মাছে দিয়ে আরও ১০ মিনিট অল্প তাপে রান্না করে চুলা বন্ধ করে দিন। মাছের টুকরাগুলো আলাদা তুলে রাখুন।

ইলিশ পোলাও তৈরি
পোলাওয়ের চাল ৪ কাপ। পেঁয়াজকুচি ১ টেবিল-চামচ। আদাবাটা ১ টেবিল-চামচ।  গুঁড়াদুধ ১/৪ কাপ। ঘি ২ টেবিল-চামচ। লবণ পরিমাণ মতো। পানি ফুটানো ৫ কাপ। মাছের স্টক ১ কাপ (২ কাপ পানিতে অল্প লবণ ও ইলিশ মাছের মাথা ভেঙে অল্প আঁচে জ্বাল দিয়ে ১ কাপ করে নিতে হবে)। হাঁড়িতে ঘি গরম করে পেঁয়াজকুচি ভেজে চাল ও আদা দিয়ে আরও দুই মিনিট ভাজুন। তারপর ফুটন্ত পানি, মাছের স্টক, মাছের ঝোল, গুঁড়াদুধ ও লবণ দিয়ে ফুটতে দিন। পানি কয়েকবার ফুটে প্রায় টেনে গেলে কিছু কাঁচামরিচ দিয়ে নাড়ুন। ঢেকে অল্প আঁচে (দমে) রাখুন। ২০ মিনিট পর পোলাও চুলা থেকে নামিয়ে নিন। ঢাকনা দেয়ার পরে কোনোভাবেই খুলবেন না এবং পোলাও নাড়বেন না। পোলাও ঝরঝরা হওয়ার জন্য এটি খুব জরুরি। কিছু পোলাও হাঁড়ি থেকে উঠিয়ে মাছের টুকরাগুলো পোলাওর উপর বিছিয়ে তার উপর ঘি ছিটিয়ে আবার ওঠানো পোলাও দিয়ে ঢেকে দমে ১০ মিনিট রাখতে হবে। বেরেস্তা দিয়ে পরিবেশন করুন।

পোলাওয়ের খাদ্যগুণ
১. পোলাওতে ক্যালরির পরিমাণ অনেক থাকে। কারণ এটি ঘি বা তেল দিয়ে রান্না করা হয়।
২. যাদের হার্টের সমস্যা, তাদের ঘি অথবা ডালডার বদলে তেল দিয়ে পোলাও খাওয়া উচিত।
৩. অনেক সময় সবজি দিয়েও পোলাও রান্না করা হয়। সে ক্ষেত্রে পোলাওয়ের খাদ্যগুণ অনেক বেড়ে যায়।
৪. তবে বৃষ্টি না থাকলে গরমকালে পোলাওটা যতটা সম্ভব এড়িয়ে চলা উচিত।

সিটিসেলের তরঙ্গ চালুর নির্দেশ

সিটিসেলের তরঙ্গ চালুর নির্দেশ

একুশে টেলিভিশন


 

সিটিসেলের বন্ধ হওয়া তরঙ্গ ২৪ ঘণ্টার মধ্যে চালু করতে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনকে (বিটিআরসি) নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। পাশাপাশি তরঙ্গ বরাদ্দের লাইসেন্স বাতিল করার সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করতে বলা হয়েছে। এর ফলে দেশের প্রথম মুঠোফোন অপারেটরটি ফের কার্যক্রমে ফিরতে পারবে বলে জানিয়েছেন সিটিসেলের কৌঁসুলি আহসানুল করিম।
বিটিআরসির করা আদালত অবমাননার এক আবেদনের শুনানি শেষে মঙ্গলবার প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বাধীন তিন বিচারপতির আপিল বেঞ্চ এ আদেশ দেন। বেঞ্চের অপর সদস্যরা হলেন বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন ও বিচারপতি মির্জা হোসেইন হায়দার। 
সোমবার সিটিসেলের লাইসেন্স বাতিল করে দেয় বিটিআরসি। এরপর সিটিসেল কর্তৃপক্ষ আদালত অবমাননার অভিযোগে একটি আবেদন করে। আদালতে সিটিসেলের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার রোকনউদ্দিন মাহমুদ ও আহসানুল করিম। আর বিটিআরসির পক্ষে শুনানিতে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম, কামরুল হক সিদ্দিক ও রেজা-ই রাব্বী খন্দকার।
আইনজীবী আহসানুল করিম জানান, গত বছরের ৩ নভেম্বর ১০০ কোটি টাকা পরিশোধের শর্তে বাংলাদেশের সবচেয়ে পুরোনো মোবাইল ফোন অপারেটর সিটিসেলের তরঙ্গ বরাদ্দ অবিলম্বে খুলে দেওয়ার নির্দেশ দেন আপিল বিভাগ। আদালত বলেন, ১৯ নভেম্বরের মধ্যেই এই ১০০ কোটি টাকা পরিশোধ করতে হবে। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে টাকা পরিশোধ করে সিটিসেল কর্তৃপক্ষ। কিন্তু গতকাল হঠাৎ করে বিটিআরসি সিটিসেলের লাইসেন্স বাতিল করে তরঙ্গ বন্ধ করে দেয়। 
আদালত একই সঙ্গে সিটিসেলের কাছে বিটিআরসির পাওনা নিয়ে বিরোধ নিষ্পত্তির জন্য প্রফেসর ড. জামিলুর রেজা চৌধুরীর নেতৃত্বে তিন সদস্যের কমিটি গঠনেরও নির্দেশ দেন। এই কমিটিতে বিটিআরসির স্পেকট্রাম বা তরঙ্গ বরাদ্দবিষয়ক পরিচালক ও যুগ্ম সচিব পর্যায়ের একজন কর্মকর্তাকে সদস্য রাখতে বলা হয়। ওই কমিটিকে এক মাসের মধ্যে বিরোধ নিষ্পত্তি করতে বলা হয়েছে।
এর আগে গত ২১ অক্টোবর বকেয়া টাকা পরিশোধ করা হয়নি—এ অভিযোগে সিটিসেলের কার্যক্রম স্থগিত করে দেয় টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থা (বিটিআরসি)। এ সিদ্ধান্ত স্থগিত চেয়ে ২৫ নভেম্বর আপিল বিভাগে আবেদন করে সিটিসেল।

 

দেশের মানুষ আর বর্তমান সরকারকে চায় না: এরশাদ

দেশের মানুষ আর বর্তমান সরকারকে চায় না: এরশাদ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, ব্রেকিংনিউজ.কম.বিডি




ঢাকা: সাবেক রাষ্ট্রপতি ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেছেন, ‘দেশের মানুষ আর বর্তমান সরকারকে ক্ষমতায় দেখতে চায় না, তারা পরিবর্তন চায়। জাতীয় পার্টিকে ক্ষমতায় দেখতে চায়।

রবিবার (২৩ জুলাই) বিকেলে দিল্লি সফর শেষে দেশে ফিরলে হজরত শাহজালাল (রা.) আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন।

এসময় বিমানবন্দরের সামনের সড়কে জাতীয় পার্টির উদ্যোগে এক সংর্বধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

তিনি আরো বলেন, ‘দেশের মানুষের পাশাপাশি বিদেশি বন্ধুরাও বাংলাদেশে জাতীয় পার্টির সরকার দেখতে চায়। এই সরকার পরিবর্তনের সময় এসে গেছে।’

সেখানে উপস্থিত দলের হাজার হাজার নেতা-কর্মী এবং সমর্থকদের উদ্দেশে এরশাদ বলেন, ‘আজকের জনসমাগম দেখে বোঝাই যায় আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনের মধ্য দিয়ে জাতীয় পার্টি ক্ষমতায় আসবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আওয়ামী লীগ ও বিএনপির পাল্টাপাল্টি আচরণের জন্য দেশ বিপথগামী হচ্ছে। তাদেরকে ক্ষমতা থেকে হঠাতে হবে। ভারত এক্ষেত্রে জাতীয় পার্টিকে সকল প্রকার সহায়তা করবে। আপনারা আমাকে ভোট দিন, আমি সন্ত্রাস, বিবাদমুক্ত, শান্তিপূর্ণ বাংলাদেশ উপহার দেবো।’

উল্লেখ্য, গত ১৯ জুলাই ৫ দিনের ব্যক্তিগত সফরে দিল্লি যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। তার সঙ্গে সফরসঙ্গী ছিলেন পার্টির মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার এমপি, প্রেসিডিয়াম সদস্য ও চেয়ারম্যানের প্রেস অ্যান্ড পলিটিক্যাল সেক্রেটারি সুনীল শুভ রায় এবং প্রেসিডিয়াম সদস্য মেজর মো. খালেদ আখতার (অব.)।

 

টমেটো পাহারায় নিরাপত্তারক্ষী

টমেটো পাহারায় নিরাপত্তারক্ষী

 

টমেটো পাহারা দেওয়ার জন্য মোতায়েন করা হয়েছে সশস্ত্র নিরাপত্তারক্ষী! কাঁধে বন্দুক নিয়ে টমেটো পাহারা দিচ্ছেন তারাহ্যা কেউ যেন টমেটো চুরি করতে না পারে সেজন্যই অদ্ভুত এই ব্যবস্থাটি নিয়েছে ভারতের মধ্যপ্রদেশের কর্তৃপক্ষ
জানা গেছে, মৌসুম না হলেও মধ্যপ্রদেশে এ বছর টমেটোর বাম্পার ফলন হয়েছে। সেইসঙ্গে ভারী বৃষ্টির কারণে কয়েকটি এলাকায় ফসলের উৎপাদন কম হওয়ায় শাক-সবজি ও ফলমূলের দাম কয়েক গুন বেড়েছে।
অথচ কয়েক মাস আগেও টমেটোসহ এসব সবজির দাম অনেক কম ছিল। আগে যেখানে প্রতি কেজি টমেটোর দাম ছিল ৩০ থেকে ৪০ রুপি, এখন সেখানে প্রতি কেজি টমেটোর দাম ধরা হচ্ছে প্রায় ১০০ রুপি। এই দামে ভোগান্তিতে পড়ছে সাধারণ মানুষেরা।
ভারতের বিভিন্ন জায়গায় টমেটো চুরি হচ্ছে। চলতি মাসেই কয়েক টন টমেটো চুরি হয়েছে। আর তাই টমেটো পাহারা দেওয়ার জন্য নিরাপত্তারক্ষী মোতায়েনের প্রয়োজন মনে করেছে মধ্যপ্রদেশ কর্তৃপক্ষ।
মধ্যপ্রদেশের দেবি আহিল্য বাই হোলকার মার্কেটের কর্তৃপক্ষ ছয়-সাতজন সশস্ত্র নিরাপত্তারক্ষী নিয়োগ দিয়েছে টমেটো পাহারা দেয়ার জন্য। বিশেষ করে ট্রাক থেকে যখন সেগুলো নামা হয় তখন যেন সেসব কেউ চুরি না করতে পারে সেদিকেই দৃষ্টি রাখছে কর্তৃপক্ষ। সূত্র: বিবিসি।

 

মেয়ে দত্তক নিয়ে বদলে যাচ্ছেন সানি লিওন! একুশে টেলিভিশন

মেয়ে দত্তক নিয়ে বদলে যাচ্ছেন সানি লিওন!

(একুশে টেলিভিশন)


দত্তক মেয়ে পেয়ে মহাখুশি বলিউড অভিনেত্রী সানি লিওন। মেয়েকে সারাক্ষণ বুকে আলগে রাখছেন। মনে হচ্ছে মাতৃত্বের অনুভূতি কাজ করছে তার মধ্যে।  সেজন্য সানির মধ্যেও বেশ পরিবর্তন আসতে শুরু করেছে!
খোলামেলা পোশাকে অভ্যস্ত সানি এখন ভদ্রোচিত পোশাক পড়া শুরু করেছেন! লম্বা পোশাক পড়ে মাথায় ওড়না দিয়ে চলাফেরা করছেন! এমন একটি ছবি ভারতের বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে। ওই ছবিতে সানি ছাড়াও তার স্বামী ড্যানিয়েল ওয়েবার এবং দত্তক কন্যা নিশা কৌর রয়েছে।
কয়েক দিন আগে নিশা কৌরকে দত্তক নেন সানি লিওন ও তাঁর স্বামী ড্যানিয়েল ওয়েবার। মহারাষ্ট্রের লাতুর থেকে তাকে দত্তক নেওয়া হয়েছে। নিশাকে নিয়ে সারাক্ষণ খুনসুটিতে মেতে আছেন সানি ও ওয়েবার দম্পত্তি।
ইন্ডাস্ট্রি শুরু করে সাধারণ অনুরাগীও মা হওয়ায় টুইট করে সানিকে শুভেচ্ছা জানায়। অনেকে টুইটারে সানিকে পরামর্শ দিয়েছেন যেন মেয়েকে নিজের মতো (পর্নোস্টার) তৈরি না করে। সূত্র : আনন্দবাজার।

খুলনা বিভাগে ধানের শীষের সম্ভাব্য প্রার্থী

খুলনা বিভাগে ধানের শীষের সম্ভাব্য প্রার্থী

 

 ঢাকা: দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন বয়কট করলেও আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নেয়ার কথা বেশ আগে থেকেই প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছে দেশের অন্যতম বৃহৎ রাজনৈতিক দল বিএনপি। এতে পাল্টে যেতে পারে রাজনীতির সব হিসাব-নিকাশ। শেষ পযন্ত ভোটযুদ্ধে মাঠ দখলে থাকবে ২০ দলীয় জোট ও ক্ষমতাসীন মহাজোট। যদিও ইতোমধ্যে বিএনপি হুঁশিয়ারি দিয়ে রেখেছে নির্বাচনকালীন সহায়ক সরকার ও নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন ছাড়া তারা নির্বাচনে যাবে না। এমনকি জনগণকে সাথে নিয়ে শেখ হাসিনার অধীনে দেশে কোনও নির্বাচন হতেও দেবে না।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, দলের সাংগঠনিক কর্মকাণ্ড পরিচালনার পাশাপাশি বিএনপির আগামী দিনে নির্বাচনে প্রার্থী হতে পারে এমন সম্ভাব্যদের খসড়া তালিকা তৈরি করছে। উদ্দেশ্য ক্ষমতাসীন সরকার আদালতকে ব্যবহার করে যদি কোনও কারণে দলের সিনিয়র ও জনপ্রিয় নেতাদের মামলার অজুহাতে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার অযোগ্য ঘোষণা করে। সেক্ষেত্রে যাতে করে বিকল্প প্রার্থী পেতে খুব একটা বেগ পেতে না হয়। তবে সম্ভাব্য প্রার্থী তালিকা তৈরি করা হচ্ছে বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে। আর সেই ক্যাটাগরিতে অগ্রাধিকার দেয়া হচ্ছে তৃণমূলে জনপ্রিয় এবং বয়সে অপেক্ষাকৃত তরুণ ও দলের জন্য নিবেদিতদের।

খুলনা বিভাগের ১০ জেলার ৩৬টি সংসদীয় আসনে বিএনপির সম্ভাব্য প্রার্থী হতে পারেন যারা:
ঝিনাইদহ-১ (শৈলকূপা): খুলনা বিভাগের সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক জয়ন্ত কুমার কুন্ডু ও বিএনপির মানবাধিকার বিষয়ক সম্পাদক আসাদুজ্জামান, সাবেক সংসদ সদস্য ও উপজেলা বিএনপির সভাপতি আব্দুল ওহাব।

ঝিনাইদহ-২ (হরিনাকুন্ডু ও সদরের কিছু অংশ): বিএনপির একক প্রার্থী জেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক সাংসদ মশিউর রহমান।

ঝিনাইদহ-৩ (মহেশপুর ও কোটচাঁদপুর): ঝিনাইদহ জেলা বিএনপির উপদেষ্টা ও মহেশপুর উপজেলা বিএনপির সহ-সভাপতি আলহাজ লতিফুর রহমান চৌধুরী, বিএনপির সাংস্কৃতিক বিষয়ক সহ-সম্পাদক কণ্ঠশিল্পী মনির খান, তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সহ-সম্পাদক আমিরুজ্জামান খান শিমুল, কোটচাঁদপুর থানা বিএনপির সভাপতি সিরাজুল ইসলাম সিরাজ, মহেশপুর উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার মোমিনুর রহমান মোমিন।

ঝিনাইদহ-৪ (কালীগঞ্জ ও সদরের বাকি অংশ): সাবেক সংসদ সদস্য শহীদুজ্জামান বেল্টু ও কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক দলের সিনিয়র যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম ফিরোজ।

চুয়াডাঙ্গা-১ (আলমডাঙ্গা ও চুয়াডাঙ্গা সদরের কিছু অংশ): বিএনপির কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু, জেলা বিএনপির আহ্বায়ক অহিদুল ইসলাম বিশ্বাস, সদস্য মো. শরিফুজ্জামান শরিফ ও লে. ক. (অব.) কামরুজ্জামান।

চুয়াডাঙ্গা-২ (দামুড়হুদা, জীবননগর ও সদরের বাকি অংশ): জেলা বিএনপির যুগ্ম-আহ্বায়ক মাহামুদুল হাসান খাঁন বাবু ও সদস্য মো. মোখলেছুর রহমার টিপু তরফদার।

মেহেরপুর-১ (সদর ও মুজিবনগর): সাবেক এমপি ও জেলা বিএনপির সভাপতি মাসুদ অরুণ।

মেহেরপুর-২ (গাংনী): সাবেক এমপি ও জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আমজাদ হোসেন ও সহ-সভাপতি জাবেদ মাসুদ মিলটন।

কুষ্টিয়া-১ (দৌলতপুর): সাবেক এমপি উপজেলা বিএনপির সভাপতি রেজা আহমেদ বাচ্চু ও জেলা বিএনপির সদস্য আলতাফ হোসেন।

কুষ্টিয়া-২ (ভেড়ামারা ও মিরপুর): সাবেক এমপি অধ্যাপক শাহিদুল ইসলাম ও দলের নির্বাহী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার রাকিব রোফ চৌধুরী।

কুষ্টিয়া-৩ (সদর): জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ সোহরাব উদ্দিন ও স্থানীয় নেতা ড.তালাত কোরেশী।

কুষ্টিয়া-৪ (কুমারখালী ও খোকশা): সাবেক এমপি জেলা বিএনপির সভাপতি মেহেদি হাসান রুমি এবং সাবেক পৌর মেয়র নুরুল ইসলাম প্রামাণিক।

খুলনা-১ (বটিয়াঘাটা ও দাকোপ উপজেলা): জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আমির এজাজ ও স্থানীয় বিএনপি নেতা লাতিফুর রহমান লাবু।

খুলনা-২ (সদর থানা ও সোনাডাঙ্গা): মহানগর বিএনপির সভাপতি ও সাবেক এমপি নজরুল ইসলাম মঞ্জু ও সাবেক এমপি আলী আজগর লবী।

খুলনা-৩ (খালিশপুর, দৌলতপুর ও খানজাহান আলী থানা): বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য কাজী সেকেন্দার ডালিম, খুলনা মহানগর বিএনপির কোষাধ্যক্ষ এসএম আরিফুর রহমান মিঠু, সাবেক ছাত্রনেতা রফিকুল ইসলাম বকুল ।

খুলনা-৪ (রূপসা, তেরখাদা ও দিঘলিয়া): বিএনপির তথ্য বিষয়ক সম্পাদক আজিজুল বারী হেলাল, আইটি বিষয়ক সম্পাদক শাহ কামাল তাজ ও জেলা সভাপতি শফিউল আলম মানা।

খুলনা-৫ (ডুমুরিয়া ও ফুলতলা): বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য ড. মামুন রহমান, সাবেক এমপি গাজী আব্দুল হক ও উপজেলা নেতা খান আলী মুনসুর।

খুলনা-৬ (কয়রা ও পাইকগাছা): কয়রা থানা বিএনপির সভাপতি অ্যাডভোকেট মোমরেজুল ইসলাম ও জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি মনিরুজ্জামান মন্টু।

বাগেরহাট-১ (চিতলমারী, মোল্লাহাট ও ফকিরহাট): সাবেক এমপি জেলা বিএনপির উপদেষ্টা শেখ মুজিবর রহমান ও জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি অ্যাড. সেখ ওয়াহিদুজ্জামান দিপু।

বাগেরহাট-২ (সদর ও কচুয়া): জেলা বিএনপির সভাপতি এমএ সালাম।

বাগেরহাট-৩ (রামপাল ও মংলা): জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি ড. ফরিদুল ইসলাম।

বাগেরহাট-৪ (মোরেলগঞ্জ ও শরণখোলা): জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি কাজী খায়রুজ্জামান শিপন ও সহ-সভাপতি এমএ খালেক।

যশোর-১ (শার্শা): জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি শামসুর রহমান, শার্শা উপজেলা সভাপতি খায়রুজ্জামান মধু ও সাধারণ সম্পাদক আবুল হাসান জহির।

যশোর-২ (ঝিকরগাছা-চৌগাছা): ঝিকরগাছা উপজেলা চেয়ারম্যান সাবিরা নাজমুল মুন্নী, জেলার সহ-সভাপতি অ্যাড. মো. ইসহক, যুগ্ম সম্পাদক মিজানুর রহমান খান, চৌগাছার সভাপতি জহুরুল ইসলাম ও ঝিকরগাছার সাধারণ সম্পাদক মর্তুজা এলাহী টিপু।

যশোর-৩ (সদর): বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য তরিকুল ইসলাম অসুস্থতাজনিত কারণে প্রার্থী না হলে পুত্র বিএনপির খুলনা বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক অনিন্দ্য ইসলাম অমিত।

যশোর-৪ (অভয়নগর-বাঘারপাড়া): বাঘারপাড়া সভাপতি বিএনপি টিএস আইয়ুব, অভয়নগর বিএনপি সভাপতি ফারাজী মতিয়ার রহমান, বাঘারপাড়ার সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আবু তাহের সিদ্দিকী।

যশোর-৫ (মনিরামপুর): মণিনরামপুর বিএনপির সভাপতি অ্যাড. শহীদ ইকবাল, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আবু মুসা, জিয়া পরিষদের যুগ্ম মহাসচিব শরিফুজ্জামান খান।

যশোর-৬ (কেশবপুর): বিএনপির সহ-ধর্মবিষয়ক সম্পাদক অমলেন্দু দাস অপু, কেশবপুর উপজেলা বিএনপির সভাপতি আবুল হোসেন আজাদ, কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক দলের সিনিয়র সহ-সভাপতি মুস্তাফিজুর রহমান ও সাবেক পৌর মেয়র আব্দুস সামাদ বিশ্বাস।

মাগুরা-১ (শ্রীপুর ও সদরের কিছু অংশ): জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি কবির মুরাদ, জেলা বিএনপির সদস্য মনোয়ার হোসেন খান ও স্থানীয় নেতা ইকবাল আক্তার খান।

মাগুরা-২ (মহম্মদপুর ও সদরের বাকি অংশ): বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান নিতাই রায় চৌধুরী, সাবেক এমপি ও জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি সলিমুল হক।

সাতক্ষীরা-১ (তালা-কলারোয়া): সাবেক এমপি হাবিবুল ইসলাম হাবিব ও তালা উপজেলা ছাত্র দলের প্রাক্তন সভাপতি মো. বদিরুজ্জামান বদরু।

সাতক্ষীরা-২(সাতক্ষীরা সদর): জেলা বিএনপির সভাপতি রহমাতুল্লাহ পলাশ, সহ-সভাপতি আব্দুল আলীম ও পৌর মেয়র তাজকিন আহমেদ চিশতি।

সাতক্ষীরা-৩ (দেবহাটা, আশাশুনি ও কালীগঞ্জের চারটি ইউনিয়ন): কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ডা. শহীদুল আলম, সাবেক এমপি আলহাজ কাজী আলাউদ্দিন ও বিএনপি নেতা অ্যাড. বরুন বিশ্বাস।

সাতক্ষীরা-৪ (শ্যামনগর ও কালীগঞ্জের আটটি ইউনিয়ন): সাবেক এমপি কাজী আলাউদ্দিন ও জেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. সৈয়দ ইফতেখার আলী।

নড়াইল-১ (কালিয়া ও সদরের কিছু অংশ): জেলা বিএনপির সভাপতি বিশ্বাস জাহাঙ্গীর ও সাবেক ছাত্র নেতা গৌতম মিত্র।

নড়াইল-২ (লোহাগড়া ও সদরের বাকি অংশ): সাবেক এমপি ও জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আ. কাদের শিকদার, সাবেক পৌর মেয়র জুলফিকার আলী ও বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান মনিরুল ইসলাম।

বৃষ্টি থাকবে আরও ক’দিন


বৃষ্টি থাকবে আরও ক’দিন

 

ঢাকা: সমুদ্রে নিম্নচাপের ফলে গেল কয়েকদিন ধরে রাজধানী ঢাকাসহ সারা দেশে ব্যাপক বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। ইতোমধ্যে আবহাওয়া অধিদফতরের পক্ষ থেকে সাগরে ৩ নম্বর সতর্কতা সঙ্কেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে। একই সঙ্গে ছোট ট্রলার কিংবা মাছ ধরার নৌকাগুলোকে উপকূলের কাছাকাছি থাকতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

এদিকে গত শনিবার রাত থেকে টানা বৃষ্টির কারণে রাজধানীজুড়ে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। অনেক সড়কেই যান চলাচল অসম্ভব হয়ে পড়েছে। তবুও শার্ট ইন করে জুতো হাতে নিয়েই ঘর ছাড়তে দেখা যাচ্ছে কর্মব্যস্ত মানুষকে। স্কুল পড়ুয়ারা পড়েছে সবচেয়ে বেশি বিড়ম্বনায়। যারা ধনী পরিবারের সন্তান তাদেরকে হয়তো নিজস্ব গাড়িতে করে স্কুলে পৌঁছে দেয়া হয়, আরেকবার নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু মধ্যবিত্ত পরিবারের ছেলেমেয়েরা তার ছিটেফোঁটাটুকুও পায় না।

অন্যদিকে শ্রমিক শ্রেণির মানুষের জন্য এই বৃষ্টি অভিশাপ নিয়েই আসে। যাদের ঘরে দুই কেজি চাল নেই, কাজে না গেলে পেটে খাবার জুটবে না এই ভরা শ্রাবণে তাদের কষ্টের সীমা নেই যেন। এক তো থাকার জায়গাটিও ভারি বর্ষণে স্যাঁতস্যাঁতে হয়ে গেছে তার উপর আবার পেটের ভেতর লেলিহান আগুন তাদের।

তবে আবহাওয়া অধিদফতর জানিয়েছে, আগামী আরও কয়েকদিন বৃষ্টি থাকবে। নিম্নচাপের কারণে সারা দেশেই এখন ভারি বৃষ্টি হচ্ছে।

মঙ্গলবার (২৫ জুলাই) সকাল ০৯টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে- পশ্চিমবঙ্গ ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত লঘুচাপটি আরও ঘণীভূত হয়ে সুস্পষ্ট লঘুচাপরুপে বর্তমানে একই এলাকায় অবস্থান করছে। মৌসুমী বায়ুর অক্ষ রাজস্থান, উত্তর প্রদেশ, বিহার, সুস্পষ্ট লঘুচাপের কেন্দ্রস্থল এবং বাংলাদেশের মধ্যাঞ্চল হয়ে আসাম পর্যন্ত
বিস্তৃত।

এর একটি বর্ধিতাংশ উত্তর-পশ্চিম বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। মৌসুমী বায়ু বাংলাদেশের উপর সক্রিয় এবং উত্তর বঙ্গোপসাগরের অনত্র প্রবল অবস্থায় বিরাজ করছে।

আবহাওয়ার পূর্বাভাসে আরও বলা হয়েছে, রংপুর, রাজশাহী, ময়মনসিংহ, ঢাকা, খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের অধিকাংশ জায়গায় অস্থায়ী দমকা থেকে ঝড়ো হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি অথবা বজধসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সাথে দেশের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারি থেকে অতি ভারি বৃষ্টি হতে পারে।

সারা দেশে দিনের তাপমাত্রা ১-৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং রাতের তাপমাত্রা সামান্য হ্রাস পেতে পারে বলেও পূর্বাভাসে বলা হয়েছে।

এদিকে টানা কয়েকদিনের বৃষ্টিতে খেটে খাওয়া মানুষ পড়েছে চরম দুর্দশায়। তাদেরই একজন শাহজাহান মিয়া। ঢাকার রিকশাওয়ালা। কথা হয় তার সঙ্গে। তিনি ব্রেকিংনিউজকে বলেন, “ভাই, রিকশা চালাই। দিনশেষে চাল ডাল কিনে ঘরে ফিরতে হয়। কিন্তু গত কয়েকদিনের বৃষ্টিতে যাত্রী সংখ্যা কিছুটা কম। ভাড়াও কমে গেছে। ইমকামও কম। ঘরে তো মাগ-পোলা আছে। তাদের মুখে তো সময় মতো ভাত দিতে হয়। কামাই না থাকলে খাওয়ামু কেমনে?”

মাত্র ২-৪ দিনের বৃষ্টিতেই শাহজাহান মিয়ার মতো এরকম হাজারো শ্রমজীবীর সংসারে দেখা দিয়েছে টানাপোড়েন। তাদের এখন একটিই প্রত্যাশা, তারা এখন দুহাত তুলে উপরওয়ালার কাছে একটিই দাবি জানাচ্ছেন- যেন মেঘ সরিয়ে আকাশে উঁকি দেয় ঝলমলে রোদ।
 

অভিনেত্রীকে ধর্ষণ মামলার প্রতিবেদন ১৭ আগস্ট

অভিনেত্রীকে ধর্ষণ মামলার প্রতিবেদন ১৭ আগস্ট

 

ঢাকা : রাজধানীর বনানীতে এক অভিনেত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে দায়ের করা মামলার তদন্ত প্রতিবেদন পিছিয়েছে। প্রতিবেদন দাখিলের জন্য আগামী ১৭ আগস্ট দিন ধার্য করেছেন আদালত।

মঙ্গলবার (২৫ জুলাই) ঢাকা মহানগর হাকিম দেলোয়ার হোসাইন এ আদেশ। এদিন মামলাটির তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য ধার্য ছিল। কিন্তু মামলার তদন্ত কর্মকর্তা বনানী থানার এসআই সুলতানা আক্তার প্রতিবেদন দাখিল করতে পারায় নতুন এ দিন ধার্য করেন আদালত।

মামলার বিবরণ থেকে জানা যায়, জন্মদিনের অনুষ্ঠান ও বিয়ের আগে মায়ের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেয়ার নামে রাত ৯টার দিকে ওই অভিনেত্রী তরুণীকে বাসায় নিয়ে যান ব্যবসায়ী বাহাউদ্দিন ইভান। বাসায় গিয়ে দেখেন, বাসায় কেউ নেই। তখন সে চলে অাসতে চাইলে জোর করে নেশাজাতীয় কিছু একটা খাওয়ানোর পর ধর্ষণ করেন। রাত সাড়ে ৩টার দিকে ওই তরুণীর ভ্যানিটি ব্যাগ রেখে বাসা থেকে বের করে দেন।

ওই ঘটনায় বনানী থানায় ইভানের নাম উল্লেখ্য করে একটি মামলা দায়ের করেন ভুক্তভোগী তরুণী। গত ৬ জুলাই বিকেলে র‌্যাব-১ ও ১১ এর যৌথ অভিযানে নারায়ণগঞ্জ থেকে ইভানকে গ্রেফতার করা হয়। এর পরদিন তার ৪ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত। ৪ দিনের রিমান্ড শেষে ১২ জুলাই ইভান আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন।

এর আগে বনানীর একটি হোটেলে জন্মদিনের অনুষ্ঠানে নিমন্ত্রণ দিয়ে নিয়ে গিয়ে দুই তরুণীকে ধর্ষণের ঘটনায় দেশব্যাপী ব্যাপক আলোচনার সৃষ্টি হয়। ওই ঘটনায় আপন জুয়েলার্সের মালিকের ছেলে সাফাত আহমেদসহ পাঁচজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। ওই ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই বনানীতে একই ধরনের এ ঘটনা ঘটে।
 

সাবেক বিচারপতির জামিন বাতিলে দুদকের আপিল

সাবেক বিচারপতির জামিন বাতিলে দুদকের আপিল

 

 ঢাকা: আপিল বিভাগের সাবেক বিচারপতি মো. জয়নুল আবেদীনকে হাইকোর্টের দেয়া আগাম জামিন বাতিল চেয়ে আবেদন করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।
সোমবার (২৪ জুলাই) বিচারপতি মো. আবদুল ওয়াহহাব মিঞার নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগের দুই নম্বর কোর্টে এ আবেদনের ওপর শুনানি হওয়ার কথা রয়েছে।
আদালতে দুদকের পক্ষে আইনজীবী খুরশীদ আলম খান। বিচারপতি জয়নুল আবেদীনের পক্ষে ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন শুনানি করবেন।
তার বিরুদ্ধে অবৈধ সম্পদ অর্জনে দুর্নীতির অভিযোগ আনে দুদক। ২০১০ সালের ১৮ জুলাই সম্পদের হিসাব চেয়ে আপিল বিভাগের সাবেক বিচারপতি মো. জয়নুল আবেদীনকে নোটিশ দেয় দুদক। পরে ওই নোটিশের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে তিনি একই সালের ২৫ জুলাই হাইকোর্টে একটি রিট আবেদনও করেছিলেন। যে রিটটি উত্থাপিত হয়নি মর্মে খারিজ হয়ে যায়।
২০১০ সালের ২৫ অক্টোবর তাকে আরও একটি নোটিশ দেয় দুদক। ৩ নভেম্বর তিনি এ বিষয়ে তথ্য জমা দেন। দীর্ঘদিন পরে ২০১৭ সালের জানুয়ারিতে তার কাছে ব্যাখ্যা চায় দুদক।
দুদকের সহকারী পরিচালক হাফিজুরের রহমানের কাছে তিনি প্রয়োজনীয় ব্যাখ্যাও দেন। এরপর জুন মাসে একটি পত্রিকায় ওই বিচারপতির বিষয়ে সংবাদ প্রকাশ হয়। পরবর্তীতে গ্রেফতার ও হয়রানির আশংকা থেকে তিনি হাইকোর্টে জামিন আবেদন করেন। এরপর গত ১০ জুলাই হাইকোর্ট তাকে এ অভিযোগের তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত জামিন দেন। এর বিরুদ্ধে আপিল বিভাগে আবেদন করে দুদক।

একই সাথে ৩ সন্তানের জন্ম

একই সাথে ৩ সন্তানের জন্ম

 

মেহেরপুর: একটি নয়, ২টি নয় সিজারিয়ান অপারেশনের মাধ্যমে ৩ পুত্র সন্তানের জন্ম দিলেন জেলা সদর উপজেলার টঙ্গি গ্রামের গৃহবধূ জলি খাতুন (২৬)।

সোমবার (২৪ জুলাই) বিকেল ৩টার দিকে শহরের এপোলো নার্সিং হোমে তাদের জন্ম হয়।

৩ বাচ্চা জন্মদিয়ে গর্ভকালীন চরম সময়ের সব যন্ত্রণা ভুলে গেছেন জলি। আনন্দের সীমা নেই জন্ম নেওয়া শিশুর দাদা নজরুল ইসলাম ও সিঙ্গাপুর প্রবাসী বাবা শফিউল ইসলামের পরিবারের।

বর্তমানে মা ও ৩ বাচ্চাই সুস্থ রয়েছেন বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকেরা।

ডা. তাপস কুমার সরকার ব্রেকিংনিউজকে জানান, জীবনে বহু সিজারে অংশ নিয়েছি। জমজ বাচ্চা পেয়েছি কিন্তু ৩টি বাচ্চা প্রসবের ঘটনা আসলেই বিরল। মেহেরপুরে এমন হয়েছে কিনা জানা নেই। সবচেয়ে বড় কথা হচ্ছে, ৩ বাচ্চা ও তার মা সুস্থ রয়েছেন। জন্মের পর বাচ্চাগুলোর প্রতিটি ওজন ২ কেজির উপরে। অনেক সময় জমজ বাচ্চা হলে তাদের পরিপূর্ণতা আসে না। কিন্তু এই শিশুদের বেলায় তার ব্যতিক্রম হয়েছে।
 

২১ ঘন্টা পর পাটুরিয়া-দৌলতদিয়ায় লঞ্চ চলাচল শুরু

২১ ঘন্টা পর পাটুরিয়া-দৌলতদিয়ায় লঞ্চ চলাচল শুরু (source:breakingnews.com,bd)

 

মানিকগঞ্জ : পদ্মা নদীতে ঢেউ কমে যাওয়ায় পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া ও আরিচা-কাজিরহাট নৌরুটে লঞ্চ চলাচল শুরু করেছে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ।

মঙ্গলবার (২৫ জুলাই) সকাল সোয়া ৮টায় লঞ্চ চলাচল শুরু হয়। এর আগে সোমবার সকাল সাড়ে ১১টা থেকে ওই নৌরুটে দুর্ঘটনা এড়াতে প্রায় ২১ ঘন্টা লঞ্চ চলাচল বন্ধ ছিল।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ আরিচা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক (ট্রাফিক) ফরিদুল ইসলাম জানান, দুর্যোগপূর্ণ অাবহাওয়া কেটে গিয়ে নদী শান্ত হওয়ায় লঞ্চ চলাচল শুরু হয়েছে। পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া ও আরিচা-কাজিরহাট নৌরুটে সর্বমোট ৩৩টি লঞ্চ চলাচল করছে বলেও জানান তিনি।

রাস্তা নেই, আছে কোটি টাকার ব্রিজ!

রাস্তা নেই, আছে কোটি টাকার ব্রিজ! (source:breakingnews.com.bd)


 শেরপুর: জেলার ঝিনাইগাতী উপজেলা থেকে বাগেরভিটা বাজার পর্যন্ত ৮ কিলোমিটার রাস্তা নেই। তবুও সংযোগ রাস্তা ছাড়াই কেটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত ব্রিজ দাঁড়িয়ে আছে। এ এলাকার মানুষের যাতায়াতের মাধ্যম নৌকা। প্রতি বছর বর্ষা মৌসুমে এ পরিস্থিতির সৃষ্টি হয় গ্রামবাসীর। এই অবস্থায় চরম দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন, মাটিয়া পাড়া, সারিকালিনগর, বালুরচর, কালিনগর, নয়াপাড়া, দাড়িয়ারপাড়, কান্দুলী, কুচনিপাড়া, বাগেরভিটা ও কোনাগাঁয়ের শিক্ষার্থীরাসহ সাধারণ মানুষ।

সারিকালিনগর গ্রামের পল্লী চিকিৎসক সেলিম মিয়া জানান, দেশ স্বাধীনের পর গ্রামবাসীর পক্ষ থেকে এ রাস্তাটি সংস্কার ও পাকাকরণের দাবি উঠেছে বহুবার। বিভিন্ন সময় জনপ্রতিনিধিদের কাছ থেকে রাস্তাটি নির্মাণের জন্য আশ্বাসও পাওয়া গেছে। কিন্তু আজও তা বাস্তবায়ন হয়নি।

রাস্তাটি সংস্কার ও পাকাকরণের অভাবে শুষ্ক মৌসুমে যেমন-তেমন প্রতি বছর বর্ষা মৌসুমে সামান্য বৃষ্টি এবং পাহাড়ি ঢলের পানিতে রাস্তাটি তলিয়ে যায়। আর গ্রামবাসীর রাস্তা পারাপারে দুর্ভোগের সীমা থাকেনা। সেই সাথে পানিবন্দি হয়ে পড়ে বিল এলাকা পরিচিত উল্লিখিত এলাকাগুলো।

গত ক’দিনের অবিরাম বর্ষণ ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলের পানিতে এখন গ্রামের শতশত লোকের পারাপারের একমাত্র মাধ্যম হয়ে দাঁড়িয়েছে নৌকা।

রাস্তাটি সংস্কার ও পাকাকরণ করা না হলেও ২০০৪ সালে এ রাস্তার গজারমারীতে এলজিইডি’র ১ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মাণ করা হয়েছে একটি ব্রিজ। কিন্তু ব্রিজ সংলগ্ন রাস্তা নির্মাণ না করেই ব্রিজ নির্মাণ করায় শুষ্ক মৌসুমেও ব্রিজটি গ্রামবাসীর দুর্ভোগের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

গ্রামের একাধিক ব্যক্তি জানান, রাস্তা সংস্কার ও পাকাকরণ করা হলে এসব এলাকায় কৃষিক্ষেত্রে উন্নয়নের পাশাপাশি উত্তরাঞ্চলের কয়েকটি জেলার সাথে এ উপজেলা যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন হবে।

এ ব্যপারে ৫ নং ঝিনাইগাতী সদর ইউপি চেয়ারম্যান মোফাজ্জল হোসেন চাঁন বলেন, সম্প্রতি কাবিখা কর্মসূচির আওতায় ব্রিজের দুপাশে মাটি কেটে উঁচু করার পরেও বন্যার কারণে কাঁচা রাস্তাটি নষ্ট হয়ে গেছে। রাস্তাটি পাকাকরণের জন্য ইতোমধ্যে একটি প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে। আশা করছি এই অর্থ বছরে পাকাকরণের কাজটি শুরু হতে পারে।

Monday, July 24, 2017

টানা বৃষ্টিতে ভোগান্তিতে রাজধানীবাসী

টানা বৃষ্টিতে ভোগান্তিতে রাজধানীবাসী (source: breakingnews.com.bd)



ঢাকা: সকাল থেকে মুষলধারে বৃষ্টি ঘর থেকে বের হওয়ার উপায় নেই বাদল দিনে পদে পদে ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন কর্মজীবী সাধারণ মানুষ রাজধানীর কোথাও হাঁটুপানি আবার কোথাও কোমর সমান পানি জলাবদ্ধতার কারণে সড়ক জুড়ে সৃষ্টি হয়েছে তীব্র যানজট খানাখন্দে ভরা বেশিরভাগ রাস্তা ডুবে থাকায় পথে পথে বিকল হচ্ছে গাড়ি বেশ কয়েকটি স্থানে রিকশা উল্টে আহত হয়েছেন যাত্রীরা
রাজধানী অধিকাংশ রাস্তায় নেই যাত্রী ছাউনি। যেগুলো আছে তাও আবার দোকানিদের কাছে লিজ দেওয়া। অবস্থায় রোদ-বৃষ্টি, ঝড়ে সাধারণ যাত্রীদের আশ্রয় নেয়ার জায়গাটুকুও নেই। চলতি পথে বৃষ্টি বাদল শুরু হলে খোলা দোকান বা চা- স্টলে আশ্রয় নিতে হচ্ছে সাধারণ মানুষকে। না হয় ভিজে ভিজেই গন্তব্যের দিকে যাত্রা করতে হচ্ছে।
খোঁড়াখুঁড়ির কারণে পায়ে পায়ে কাদার ছড়াছড়ি, আর রোদ হলে ধুলোর ঝড়ে চারদিক অন্ধকার। চলাচলের বিকল্প কোনো ব্যবস্থা না থাকায় এই কাদা আর ধুলোর অত্যাচার সয়েই গন্তব্যের দিকে ছুটতে হয় রাজধানীবাসীকে। এর মধ্যে বাড়তি কষ্ট কথিত সিটিং-সার্ভিস নামধারী বাসগুলোর নির্মম ব্যবহার। অধিকহারে ভাড়া আদায়ের লক্ষ্যে সব ধরনের মানবিকতাকে ধুলিষ্যাৎ করে সিটিং সার্ভিস তার ব্যবসা অব্যাহত রেখেছে।
সোমবার (২৪ জুলাই) রাজধানীর মিরপুর, শেওড়াপাড়া, ফার্মগেট, শাহবাগ, বাড্ডা, নতুনবাজার, মতিঝিল, কমলাপুর, যাত্রাবাড়ি, গুলিস্তানসহ নগরীর প্রতিটি বাস স্টপেজে এমন চিত্র দেখা গেছে।
মেরুল বাড্ডার বাসিন্দা মুরাদ হোসেন শাহবাগ আজিজ সুপার মার্কেটের দোকানে চাকুরি করেন। তিনি ব্রেকিংনিউজকে বলেন, সকাল ১০টায় দোকান খুলতে হয়। এজন্য দুই ঘণ্টা হাতে রেখে বাসা থেকে বের হয়েছি। কিন্তু এখন বেলা সাড়ে নয়টা বাজে গাড়িতেই উঠতে পারিনি। প্রত্যেকটা গাড়িই সিটিং হয়ে আসছে। দরজা লক করা উঠার কোন সুযোগ নাই।
সময় তার পাশে থাকা বেসরকারি একটি স্কুলে চাকুরি করেন তৌহিদ আলম। তিনি বলেন, ‘ভাই আমাদের মত সাধারণ মানুষের কষ্ট দেখে দেখে। পত্রিকায় তো কতই লেখা হচ্ছে কিন্তু অবস্থা থেকে উত্তোরণের কোন উদ্যোগ দেখছি না।
এক ধরনের ক্ষোভ প্রকাশ তৌহিদ মিয়ার মত অনেকে বলেন, বছরের প্রায় শুরু থেকে উত্তর বাড্ডা থেকে রাস্তার খোড়ার কাজ শুরু হয়েছে। এই সাত মাসে মাত্র দুই কিলোমিটার রাস্তা খুঁড়ে পাইপ বসানো সম্ভব হয়েছে। তাছাড়া রাস্তা খোঁড়ার পর তা মেরামত করতে কত দিন লাগবে সে কথা কে বলতে পারবে।